কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতিকুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও ক্ষতিগ্রস্থ ঘর-বাড়ীতে এখনও ফিরতে পারেনি অনেক পরিবার। বাঁধ ও পাকা সড়কে দুর্বিসহ দিন কাটছে তাদের। খাদ্য, বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকটে নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে দুর্গত এলাকার মানুষজন। বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে কৃষিতে, বিদ্ধস্থ হয়ে পড়েছে কাঁচা-পাকা সড়ক, ব্রীজ-কালভার্ট ও বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ।

টানা বন্যায় কুড়িগ্রামের ৯ উপজেলায় সম্পুর্ণরুপে নষ্ট হয়ে গেছে ১০ হাজার ৫শ হেক্টর জমির আউশ ধান, বীজতলা, পটল, মরিচসহ বিভিন্ন ফসল। ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছে ৫৩ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ, ৩৯ টি ব্রীজ-কালভার্ট, ৫শ৫৭ কিলোমিটার কাঁচা সড়ক ও ৬১ কিলোমিটার পাকা সড়ক।

এবারের বন্যায় জেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছিল ৬ লক্ষাধিক মানুষ। আশ্রয় কেন্দ্র, বাঁধ ও পাকা সড়কে আশ্রয় নিয়েছিল কয়েক হাজার পরিবার। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় এদের বেশির ভাগ ঘর-বাড়ীতে ফিরে গেলেও নিম্নাঞ্চলের ক্ষতিগ্রস্থ ঘর-বাড়ীতে ফিরতে পারেনি অনেক পরিবার। বন্যা কবলিত গ্রামীণ জনপদের রাস্তা-ঘাট বিদ্ধস্থ হওয়ায় আরো দুর্ভোগ বেড়েছে বানভাসীদের। বন্যা কবলিত এলাকার মানুষজনের হাতে কাজ না থাকায় খাদ্য সংকটে পড়েছে পরিবার গুলো। পর্যাপ্ত ত্রান সহায়তাও পাচ্ছেন না তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য