02 26 17

রবিবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং | ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৩ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল) | ২৮শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৮ হিজরী

Home - দিনাজপুর - খানসামায় ডিগ্রি কলেজ বিষয়ে সংঘর্ষ মামলায় আটক সরকারী কৌসুলীকে জেল হাজতে প্রেরণ ৪ ঘন্টা পর মুক্ত

খানসামায় ডিগ্রি কলেজ বিষয়ে সংঘর্ষ মামলায় আটক সরকারী কৌসুলীকে জেল হাজতে প্রেরণ ৪ ঘন্টা পর মুক্ত

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥ খানসামা ডিগ্রি কলেজ জাতীয়করণে দাবীতে হরতাল চলাকালে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা পৃথক দু’টি মামলায় দিনাজপুর জেলা জজ কোর্টের জিপি (সরকারী কৌশলী) এ্যাড. মীর ইউসুফ আলীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ্যাড. মীর ইউসুফ আলী খানসামা উপজেলার সহজপুর গ্রামের বাসিন্দা।

বুধবার (১১ জানুয়ারী) সকালে এ্যাড. মীর ইউসুফ আলী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত-২ এ আত্মসমর্পন করে জামিন চাইলে বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. লুৎফর রহমান তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ৮ জানুয়ারি রোববার খানসামা ডিগ্রি কলেজকে জাতীয়করণের দাবিতে কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ এলাকাবাসী অর্ধদিবস হরতালের কর্মসূচী ঘোষণঅ করে। হরতাল চলাকালে দুপুরে আন্দোলনকারীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশ বাধা দেয়। পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে মিছিল করলে উভয়ের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ, টিআরসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সংঘর্ষে ৫ পুলিশসহ প্রায় ৩০ জন আহত হয়।

এই ঘটনায় খানসামা থানা পুলিশের উপপরির্দশক (এসআই) দুলাল উদ্দিন বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে ৪১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৫০ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় জিপি মীর ইউসুফ আলীকে ৯নং আসামি করা হয়।

একই ঘটনায় খানসামা থানার এসআই জ্বালাও পোড়াও আইনে ৩৭ জনের নাম দিয়ে অজ্ঞাত আরো ৬শ’ জনকে আসামি করে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় জিপি মীর ইউসুফ আলীকে ৩নং আসামি করা হয়। পরবর্তিতে ৪ ঘন্টা পর তিনি জামিনে মুক্ত পান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য