08 21 18

মঙ্গলবার, ২১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং | ৬ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৯ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

Home - দিনাজপুর - লিচু রাজ্য দিনাজপুরে লিচুর বাগানে এক লক্ষ নারীর এক মাসের কর্মসংস্থান

লিচু রাজ্য দিনাজপুরে লিচুর বাগানে এক লক্ষ নারীর এক মাসের কর্মসংস্থান

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ কাবিখা, টাবিখা, কর্মসৃজন কিংবা সরকারের বিশেষ কোন প্রকল্প নয়,দিনাজপুরে ১৩ উপজেলায় লিচুর বাগানে কমপক্ষে ১ লক্ষ নারীর ১ মাসের কর্মসংস্থান হয়েছে।

সংসারের পাশা পাশি মহিলারা গড়ে ২৫০ টাকা করে এই এক মাসে সাড়ে ৭ হাজার করে টাকা আয় করবে। সাথে তারা পরিবারের খাবার জন্য পাবে পর্যাপ্ত লিচু।

দিনাজপুরে লিচু মৌসুম শুরু হয়েছে। বাগানিরা তাদের বাগানের লিচু ভাঙ্গতে শুরু করেছে। বাজারে আসতে শুরু করেছে  প্রচুর লিচু।

দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সুত্রে জানা যায়, দিনাজপুরের ১৩ টি উপজেলার মাটি ও জলবায়ু লিচু উৎপাদনে উপযোগী হওয়ায় দিনাজপুরে  লিচু চাষে রীতিমত বিপ্লব ঘটেছে। দিনাজপুরে ৪ হাজার ১৮০ হেক্টর জমিতে ৫ হাজার ২৯৮ টি বাগানে ৬ লাখ ৪৫ টি গাছে লিচু উৎপাদন হয়েছে। উৎপাদন লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২৩ হাজার ২২৭ মেট্রিক টন।

লিচু বাগানীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, দিনাজপুরে বাগান গুলোতে লিচু ভাঙ্গা শুরু হয়েছে। এই বাগান গুলোতে মহিলারা লিচু বাছাই ও বাঁধার কাজ করছে। একেকটি বাগানে ১৫ থেকে শুরু করে ৩০ জন পর্যন্ত মহিলা কাজ করছে। যারা গড়ে প্রতিদিন কমপক্ষে ২৫০ টাকা করে মজুরী পেয়ে থাকে কাজ চলবে ১ মাস। তাতে করে মহিলারা সংসারের কাজের পাশা পাশি লিচু বাছাই ও গুনে গুনে লিচু বেধে দিয়ে এক মাসে কমপক্ষে সাড়ে ৭ হাজার টাকা আয় করবে। যা তাদের বাড়তী চাহিদা মেটাতে সহায়ক হবে।

লিচু বাগানী  ও ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম,লুৎফর রহমান,জাকির হোসেন জানান,লিচুর এই মৌসুমে কমপক্ষে ১ লক্ষ মহিলার ১ মাসের কর্মসংস্থান হয়ে থাকে।

সদর উপজেলার মাসিমপুর এলাকায় লিচু বাগানে কাজ করতে আসা শাহানারা,মৌসুমী,ছাবিয়া,মজিনা ,সুমি, জাহেদা জানায়, এই কাজ তারা প্রতিবছর করে থাকে। সংসারের কাজের পাশা পাশি তারা এই কাজ করে থাকে। তারা সকাল ৯ টার সময় আসে আর দুপুর ২ টার দিকে কাজ শেষ করে চলে যায়। বিকেলে লিচু ভঙ্গলে বাগানীরা খবর পাঠায় বা মোবাইলে জানালে তারা বিকেলে এসে কাজ করে । অন্যথায় বিকেলে তাদের কাজ করতে হয়না। পাশা পাশি যে সব লিচু বটা ছুটে যায়,ফেটে যায় বা কালো দাগ থাকে সে সব লিচু বাগানীরা আমাদের দিয়ে দেয়। মহিলারা জানায়, তারা এই কাজ খুব স্বাচ্ছন্দে কাজ করে।

এ ব্যাপারে দিনাজপুর কৃষি অধিদপ্তরের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম জানান,গত ৪/৫  বছর  ধরে মহিলারা লিচুর বাগানে কাজ করছে। মহিলাদের মজুরী কম হওযায় এবং তাদের কাজ পরিচ্ছন্ন হওয়ায় বাগানী ও ব্যবসাযীরা মহিলা শ্রমিকদের কে দিয়ে কাজ করাতে বেশী আগ্রহী।