11 21 17

মঙ্গলবার, ২১শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল) | ২রা রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

Home - দিনাজপুর - কাহারোলে কীটনাশক ছাড়াই ক্ষেতের পোকা দমন

কাহারোলে কীটনাশক ছাড়াই ক্ষেতের পোকা দমন

দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার মাঠে এখন সবুজ ধানক্ষেতে অপার সৌন্দর্য। এখানকার কৃষকেরা এবার ধানক্ষেতে ২ পদ্ধতির পাচিং এর মাধ্যমে ক্ষেতের ক্ষতিকারক পোকামাকড় দমনে কাজ করছেন বলে জানা গেছে। কেননা পাচিং পদ্ধতিতে ধানক্ষেতের পোকামাকড় দমনে একদিকে ফসলের উৎপাদন খরচ কম হয়, অন্যদিকে ফলনও বাড়ে। প্রায় দিন দিন এই বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি এলাকার কৃষকের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

কৃষিবিভাগ জানায়, ধানের জমিতে ডেথ পাচিং অর্থাৎ জমিতে বাঁশ বা গাছে মরা ডাল-পালা পুঁতে এবং লাইফ পাচিং অর্থাৎ জমিতে বিশেষ দূরত্বে ধইঞ্চা গাছ লাগিয়ে পাখি বসার ব্যবস্থা করলে কীটনাশক ছাড়ায় ফসলের পোকামাকড় দমন করা যায়। এবার উপজেলায় ৭০ ভাগ জমিতে কৃষকেরা এই বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির মাধ্যমে পোকামাকড় দমন করছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ শামীম বলেন, ধানক্ষেতে ডেথ বা লাইফ পাচিং পদ্ধতিতে পাখি বসার ব্যবস্থা করা হলে পাখিরা সহজেই ধানের মাজরা ফুতি সহ ক্ষতিকারক পোকাগুলো খেয়ে পোকার বংশবিস্তার রোধ করবে। এটি জৈবিক বালাই দমন পদ্ধতি হওয়ায় কীটনাশক ব্যবহারের প্রয়োজন হয় না। তাছাড়া বৈজ্ঞানিক এই পদ্ধতি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় এবার ৬টি ইউনিয়নে ১৩ হাজার ৭৫৪ হেঃ জমিতে আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বর্তমানে তা অতিক্রম করে ১৪ হাজার ২৫০ হেঃ জমিতে আমন চাষ করা হয়েছে। কৃষকেরা জানান, এবার আমন ধান চাষাবাদের তারা কীটনাশকের পরিবর্তে ডেথ ও লাইফ পাচিং এর মাধ্যমে পাখি বসার ব্যবস্থা করেছে। এছাড়া বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি প্রয়োগ করে উৎপাদন খরচ কমিয়ে আনতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। বর্তমানে ধানক্ষেতে রোগ বালাই কম।

অন্যান্য বারের তুলনায় আবাদ হয়েছে অনেক ভাল আর এই কারণে এবার কৃষকেরা বাম্পার ফলনের স্বপ্ন দেখছে। উপজেলার ডুডিয়া গ্রামের হরিশ চন্দ্র রায় বলেন, এবারে আমি অন্যান্যদের দেখাদেখি আমন ধানের ক্ষেতে কীটনাশকের পরিবর্তে লাইফ পাচিং পদ্ধতি ব্যবহার করায় কম খরচে ধানের বাম্পার ফলন পাবো বলে আশা করছি।

কাহারোল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ শামীম বলেন, কম খরচে আমন ধানের বাম্পার ফলন নিশ্চিত করতে কীটনাশকের পরিবর্তে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে বিশেষ করে ডেথ ও লাইফ পাচিং ব্যবহারে কৃষকদের উদ্ধৃদ্ধ করনে কৃষি বিভাগ চাষী পর্যায়ে নিয়মিত চাষী, উঠান বৈঠক ও ব্যক্তিগত যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য