12 18 17

সোমবার, ১৮ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ৪ঠা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ (শীতকাল) | ২৯শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

Home - দিনাজপুর - দিনাজপুরে উপজেলা এডভোকেসী প্লাটফর্মের সাথে মতবিনিময় সভা

দিনাজপুরে উপজেলা এডভোকেসী প্লাটফর্মের সাথে মতবিনিময় সভা

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর সদর উপজেলা প্রশাসনের সাথে নেটওয়ার্কিং ফর ইনক্লুশান এন্ড এমপাওয়ারমেন্ট অফ দলিত’স এন্ড নৃতাত্বিক ইন দি নর্থ ওয়েস্ট অফ বাংলাদেশ প্রকল্পের দিনাজপুর সদর উপজেলা এডভোকেসী প্লাটফর্মের এক মত বিনিময় সভা ৬ ডিসেম্বর বুধবার উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে অুনষ্ঠিত হয়।

সদর উপজেলা এডভোকেসী প্লাটফর্মের সভাপতি গোপাল কিস্কুর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত এই মতবিনিময় সভায় সদর উপজেলা নির্বাহি অফিসার আব্দুর রহমান প্রধান অতিথি ছিলেন। সম্মানিত অতিথি ছিলেন সিনিয়র সহকারি জজ এস এম শফিকুল ইসলাম, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মোঃ আসাদুজ্জামান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার ক খ আলাওয়াল হাদী, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফুল হক প্রধান।

অতিথিদের উদ্দেশে সদর উপজেলার নৃতাত্মিক ও দলিত জনগোষ্ঠীর ভূমি, আবাসন, শিক্ষা ইত্যাদি বিষয়ে বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন নেটওয়ার্ক ফর নন মেইনস্ট্রিম মারজিনালাইজড কমিউনিটিস- এনএনএমসি ফাউন্ডেশনের এডভোকেসী অফিসার পাপন কুমার সরকার, এডভোকেসী প্লাটফর্মের জেলা কমিটির সভাপতি চিত্ত ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক আলবিনুস টুডু, জিবিকে’র আওয়ার স্কুল ফর এথনিক চিলড্রেন প্রজেক্টের লাকি মারান্ডী, সাংবাদিক আজহারুল আজাদ জুয়েল, সদর উপজেলা কমিটির সদস্য রংলাল হেলা, রাজকুমার হেলা প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন সদর উপজেলা এডভোকেসী প্লাটফর্মের সাধারণ সম্পাদক শিউলি বাড়া।

সভায়।প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহি অফিসার আব্দুর রহমান বলেন, ক্ষুদ্র নৃতাত্মিক জাতি-গোষ্ঠী ও দলিত সম্প্রদায় বিভিন্ন ধরণের সমস্যায় আছেন। সমস্যাগুলো সুনির্দিষ্ট করে জানালে প্রশাসনের লোক হিসেবে আমরা সমাধানের চেষ্টা করব। তিনি বলেন, যদি কোন সম্প্রদায়ের আবাসনের সমস্যা থাকে তাহলে আ¤্রয়ন প্রকল্প বা গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের মাধ্যমে তার সমাধান করা সম্ভব হবে। স্যানিটেশন, ল্যাট্রিন, শিক্ষার সমস্যা থাকলে তাও সমাধান করা যাবে। সরকার সমস্যা মোকাবেলায় আন্তরিক। তবে সমস্যা যাদের তারা যদি নিজেরা এগিয়ে না আসেন তাহলে সরকার অথবা প্রশাসন বুঝবেনা যে, কোথায় কোন সমস্যা অথবা চাহিদা আছে।

আব্দুর রহমান তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন যে, বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। এখানে সব ধর্ম, সব বর্নের মানুষ একসাথে বসবাস করতে পারে। তিনি নৃতাত্মিক জনগোষ্ঠীর আবাসনের জন্য গুচ্ছগ্রাম এবং ধর্ম চর্চার জন্য মন্দির করে দেয়ার আশ^াস দেন।

অন্যান্য অতিথিগণ বলেন, ক্ষুদ্র নৃতাত্মিক জাতি-গোষ্ঠী ও দলিত সম্প্রদায়ের প্রতি সকলের সংবেদনশীল মন আছে। সবাই তাদের সমস্যা সমাধানে আনইরকভাবে কাজ করতে আগ্রহী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য