Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
09 20 18

বৃহস্পতিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৯ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী

Home - আন্তর্জাতিক - পশ্চিম তীরে আরও ১১০০ বসতবাড়ি নির্মাণের অনুমোদন ইসরায়েলের

পশ্চিম তীরে আরও ১১০০ বসতবাড়ি নির্মাণের অনুমোদন ইসরায়েলের

অধিকৃত পশ্চিম তীরে ১১০০টিরও বেশি নতুন বসতবাড়ি স্থাপনের অনুমোদন দিয়েছে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ। বুধবার (১০ জানুয়ারি) ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বসতি নির্মাণ সংক্রান্ত তদারকিতে নিয়োজিত কমিটি এই অনুমোদন দেয়। দ্বিরাষ্ট্রনীতি সমাধানের পক্ষে কাজ করা ইসরায়েলি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা পিস নাউ এর বরাত দিয়ে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি খবরটি জানিয়েছে।

App DinajpurNews Gif

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) পিস নাউ এএফপিকে জানায়, ৩৫২টি বসতভিটা নির্মাণকে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আরও কিছু বসতভিটা স্থাপনের প্রক্রিয়া প্রাথমিক পর্যায়ে আছে। পিস নাউ আরও জানায়, পশ্চিমতীরে বেশিরভাগ বসতভিটা স্থাপনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে, অথচ ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দ্বিরাষ্ট্রনীতি সমাধানে পৌঁছাতে চাইলে এই জায়গাগুলো ইসরায়েলকে ফাঁকা করতে হবে। এইভাবে পশ্চিমতীরে বসতভিটা স্থাপনের অনুমোদন দেওয়াকে দ্বিরাষ্ট্র সমাধানের অন্তরায় বলে মনে করছে উন্নয়ন সংস্থাটি।

পিস নাউ এর তথ্য অনুযায়ী, গত বছর ইসরায়েলি বসতিতে ৬,৭৪২টি গৃহায়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। ২০১৩ সাল থেকে এই সংখ্যা সর্বোচ্চ।

উল্লেখ্য,১৯৯০ এর দশকের শুরু থেকে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে বেশ কয়েক দফায় শান্তি আলোচনা হয়েছে। ফিলিস্তিনিরা চায় পশ্চিম তীরে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে এবং পূর্ব জেরুজালেমকে এর রাজধানী বানাতে। ১৯৬৭ সালের আরব যুদ্ধের পর থেকে ইসরায়েল পূর্ব জেরুজালেম দখল করে রেখেছে। পূর্ব জেরুজালেমকে নিজেদের অবিভাজ্য রাজধানী বলে দাবি করে থাকে ইসরায়েল। অবশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পূর্ব জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি।
১৯৬৭ সালের পর পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে ১শরও বেশি বসতি স্থাপন করেছে ইসরায়েল। সেখানে ৬ লাখেরও ইসরায়েলি বসবাস করে। আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় এ বসতি স্থাপনকে অবৈধ বলে বিবেচনা করা হলেও তা মানতে নারাজ ইসরায়েল।