12 10 18

সোমবার, ১০ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২রা রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

Home - দিনাজপুর - দিনাজপুরে কনকনে শীতে জনজীবন স্থবির

দিনাজপুরে কনকনে শীতে জনজীবন স্থবির

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে গত প্রায় দু’সপ্তাহধরে বয়ে যাওয়া শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকায় কনকনে শীতে জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও শীতের তীব্রতা কমেনি। শনিবার (১৩ জানুয়ারী) দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস।

App DinajpurNews Gif

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন জানান, দিনাজপুরে শনিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া গত শুক্রবার ছিল ৭ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগামী দুয়েক দিনের মধ্যে এই তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাবে বলে জানান তিনি।

দিনাজপুর হাড় কাঁপানো কনকনে শীতে মানুষের পাশাপাশি গবাদি পশুসহ অন্যান্য প্রাণিকুলও কাহিল হয়ে পড়েছে। উত্তরের হিমেল হাওয়ায় শৈত্যপ্রাবাহের কারণে শীতে লোকজন ঘর থেকে বের হতে পারছেন না। কাজকর্ম করতে না পারায় খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষগুলো সবচেয়ে বেশী দুর্ভোগে পড়েছেন।

সন্ধ্যার পর থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত ঘনকুয়াশা থাকায় যানবাহন চলাচল করে ধীর গতিতে। ফলে সব ধরনের যানবাহন দেরীতে পৌঁছে। এছাড়া ট্রেনও বিলম্বে ছেড়েছে এবং পৌঁছেছে বিলম্বে। সংবাদপত্র এসে পৌঁছেছে অন্যান্য দিনের চেয়ে দেরিতে।

ঘনকুয়াশার কারণে সকালেও হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহনগুলোকে চলাচল করতে হয়। এর আগে কয়েক দিন সূর্যের দেখা মিললেও গত তিন দিনধরে সূর্যের দেখা মিলছে না।

এদিকে শীত অব্যাহত থাকায় গরম কাপড়ের দোনানে ভিড় বেড়েছে। নিম্ন-মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষগুলো শহরের কাচারী বাজারসহ বিভিন্ন ফুটপাতের দোকানে ভিড় করছেন। ফলে ফুটপাতের দোকানগুলোতে বেচাবিক্রি জমে উঠেছে।

এদিকে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম জানান, দিনাজপুর জেলায় এ পর্যন্ত ৭৬ হাজার ৮২০ পিস শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, দিনাজপুরে শীতের প্রকোপ বেশী হলেও একজন মানুষও শীতে কষ্ট করছে না। শীতার্ত মানুষের শীত লাঘবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে এবং আগামীতে আরো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য