02 19 18

সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং | ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল) | ২রা জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী

Home - দিনাজপুর - বিরলে বানিজ্যিক ভাবে “বেদানা” চাষ

বিরলে বানিজ্যিক ভাবে “বেদানা” চাষ

সুবল রায়, বিরল (দিনাজপুর) থেকেঃ দিনাজপুরের বিরলে বানিজ্যিক ভাবে বেদানা চাষ করে লাভবান হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা। কম খরচে অধিক লাভ হওয়ায় কৃষকরা এ চাষে ঝুঁকছেন। উপজেলায় ৩০ জন কৃষক এবার ৩ হেক্টর জমিতে দেশীয় প্রযুক্তিতে বেদানা চাষ করেছেন। মাটি ও আবহাওয়া বেদানা চাষের জন্য বেশ উপযোগী। অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি বিভিন্ন গ্রামে চাষ করা হচ্ছে দেশীয় বেদানা।

কম খরচে অধিক লাভ হওয়ার স্বপ্ন দেখে পরীক্ষা মুলক উপজেলার রানীপুকুর ইউনিয়নের জগতপুর গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিক সহ এবার আরো ৩০ জন কৃষক ৩ হেক্টর জমিতে দেশীয় বীজ উৎপাদন করে বেদানা চাষ করেছেন। এর মধ্যে টিকরীপাড়া গ্রামের কৃষকরা চাষ করেছেন ২ হেক্টর জমিতে।

এ বেদানা জ্যোষ্ঠ থেকে ভাদ্র মাসের যে কোন সময় এ জাতের বীজ বপন করা হয়। চারা লাগানোর ০২-০৩ বছরের মধ্যে বেদানা ধরা ও পাকতে শুরু করে। প্রতিটি গাছে ১০০ থেকে ১৫০ টি করে বেদানা ধরবে। যে কোন মৌসুমে বেদানা উৎপাদনের জন্য কৃত্রিম হরমোন প্রয়োগের প্রয়োজন হয় না। তবে ফল ধরে দ্বিগুন।

বেদানা চাষী সিদ্দিক বলেন, এবারে পরীক্ষা মুলক ১০ কাঠা মাটিতে বেদানার আবাদ করি, ফলন ভালো হওয়ায় একটি গাছের বেদানা আমি ৮ হাজার টাকায় বিক্রি করবো। তবে অন্য ফসলের চেয়ে বেদানার লাভ বেশী হবে মনে করি।

বিরল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, এই উপজেলার আবহাওয়া ও মাটি বেদানা চাষের উপযোগী হওয়ায় এ উপজেলার সিদ্দিক সহ কৃষকরা পরীক্ষা মুলক ৩ হেক্টর জমিতে বেদানা চাষ করেছেন। কম খরচে অধিক লাভবান হওয়ায় তারা এ চাষ শুরু করেছেন। কৃষি অফিসের পরামর্শে কম খরচে অধিক লাভের আশায় আরো কৃষক এ চাষ করবেন বলে আশা করছেন কৃষি বিভাগ।

মাটি ও আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় অল্প খরচে বেশী লাভের আশায় বেদানা চাষে কৃষকরা ঝুকেছেন। তাছাড়া ফল ভালো হলে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বানিজ্যিক ভাবে এই বেদানা বিদেশে রপ্তানী করা সম্ভব বলে মনে করছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য