08 21 18

মঙ্গলবার, ২১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং | ৬ই ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৯ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

Home - আন্তর্জাতিক - কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা নিয়ে তদন্ত শুরু যুক্তরাষ্ট্রের

কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা নিয়ে তদন্ত শুরু যুক্তরাষ্ট্রের

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ ও কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) লন্ডনভিত্তিক রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কার্যক্রম খতিয়ে দেখছে।

মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে নিউ ইয়র্ক টাইমস এ তদন্তের কথা জানিয়েছে বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য অপব্যবহারের অভিযোগে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়ে সম্প্রতি কার্যক্রম গুটিয়ে নিয়েছে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা।

মার্কিন তদন্ত কর্মকর্তারা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সাবেক কর্মী ও যে ব্যাংকের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক লেনদেন সম্পন্ন হতো সেখানকার কর্মকর্তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়েছেন বলে যুক্তরাষ্ট্রের এক সরকারি কর্মকর্তা ও তদন্ত সংশ্লিষ্টদের বরাতে জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস।

মার্কিন বিচার বিভাগ ও এফবিআই মূলত তথ্য বিশ্লেষণকারী প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক লেনদেন এবং কীভাবে এটি ফেইসবুক ও অন্যান্য মাধ্যম থেকে ব্যবহারকারীদের তথ্য নিয়েছে তা খতিয়ে দেখছে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

তদন্তের অংশ হিসেবে কর্মকর্তারা ফেইসবুকের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বলেও খবর নিউ ইয়র্ক টাইমসের।

এফবিআই, মার্কিন বিচার বিভাগ ও ফেইসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে রয়টার্স এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলেও তারা মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। তাৎক্ষণিকভাবে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সাবেক কর্মকর্তাদেরও মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

কোটি কোটি ফেইসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য হাতানোর অভিযোগে তদন্তের মুখে গ্রাহক হারানো এবং পর্বতসমান আইনী খরচ সামলাতে হিমশিম খেতে থাকা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা চলতি মাসের শুরুতে বন্ধ হয়ে যায়। ব্যবসায় বড় ধরনের ধস দেখিয়ে নিজেদেরকে দেউলিয়া ঘোষণা করে প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ করে দেন এর উদ্যোক্তারা।

২০১৬ সালের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে কাজ করে লন্ডনভিত্তিক এ পরামর্শক প্রতিষ্ঠানটি সফলতার সাক্ষর রাখে। কিন্তু তারা একটি অ্যাপের মাধ্যমে কয়েক কোটি ফেইসবুক গ্রাহকের তথ্য হাতিয়ে তা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের কৌশল নির্ধারণে কাজে লাগিয়েছে বলে সম্প্রতি ফাঁস হওয়া তথ্যে জানা গেছে।

ফেইসবুকের ভাষ্য অনুযায়ী, তাদের আট কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের তথ্য হাতিয়ে নিয়েছিল কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা।

এই তথ্য ফাঁস হওয়ার পর যুক্তরাজ্যের এই প্রতিষ্ঠানটি তদন্তের মুখে পড়ে। পাশাপাশি ফেইসবুকও ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে। ফেইসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গকে তলব করে ব্রিটিশ পার্লামেন্টারি কমিটি।

সেখানে প্রতিনিধি পাঠিয়ে নিজের উপস্থিতি এড়াতে পারলেও পরে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে ঠিকই জবাবদিহি করতে হয় জাকারবার্গকে। ওই সময় ফেইসবুকের শেয়ারেরও ব্যাপক দরপতন হয়।

ফেইসবুকের তথ্য কেলেঙ্কারির এ ঘটনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ইউরোপে বেশ কয়েকটি তদন্ত চলছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্টকে নির্বাচনকে সামনে রেখে কোটিপতি রিপাবলিকান দাতা রবার্ট মেরসের ও স্টিভ ব্যাননের দেড় কোটি ডলারের পৃষ্ঠপোষকতায় ২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করেছিল কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা।

প্রতিষ্ঠানটির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ব্যানন পরে হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের উপদেষ্টাও হন। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে মতবিরোধের জেরে চাপের মুখে গত বছরের অগাস্টে সেই পদ ছেড়ে দিতে হয় তাকে।